‘আম্মাজান’ সিনেমায় মান্নার জায়গায় ফরীদি, রুবেলকে ভেবেছিলেন ডিপজল

 


ঢালিউডের অন্যতম ব্যবসাসফল সিনেমা ‘আম্মাজান’ এ বাদশাহ চরিত্রে চিত্রনায়ক মান্নার জায়গায় অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি ও রুবেলের সঙ্গে আলোচনা করেছিলেন সিনেমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অমি বনি কথাচিত্রের কর্ণধার মনোয়ার হোসেন ডিপজল।


নব্বইয়ের দশকে ডিপজল ও মান্নার বন্ধুত্বের খবর এখনও এফডিসিতে আলোচিত; সেই বন্ধুত্বে কীভাবে চিড় ধরল তা নিশ্চিত জানা না গেলেও তাদের দুজনের দূরত্ব ঘোচাতে কাজী হায়াতের দূতিয়ালির কথা সামনে এসেছে।

কাজী হায়াৎ বলেন, “মান্নার সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুব ভালো ছিল। হুমায়ুন ফরীদির সঙ্গে ছবিটি নিয়ে আলোচনার মধ্যে একদিন মান্নাকে বললাম, এত সুন্দর একটা গল্প চলে যাচ্ছে, তুই না করলে অন্যায় হবে। আমি তোকে নিয়ে কাজ করতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করব। ‍তুই পারলে ডিপজলের সঙ্গে গণ্ডগোলটা মিটিয়ে নে’ মান্না চালাক ছেলে ছিল। সেদিনই কোথায়, কীভাবে কথা বলে ডিপজলের সঙ্গে মিটমাট করে ফেলেছিল।
“পরদিনই ডিপজল আমাকে বললেন, ‘মান্না ডেট দিয়ে গেছে। ওকে নিয়েই ছবিটা করেন’।”
প্রযোজনার পাশাপাশি সেই সিনেমায় মান্নার বন্ধু কালামের চরিত্রে অভিনয় করেন ডিপজল।

সিনেমার শুটিং শুরুর কিছুদিন পর ডিপজল-মান্নার সম্পর্কের সুতোয় আবার টান পড়লে ‘আম্মাজান-এর কাজ আটকে থাকে প্রায় দুই বছর। মিটমাটের পর শুটিংয়ে ফিরেছিলেন মান্না।

সিনেমা মুক্তির পর মান্নার অভিনয় দর্শকমহলে প্রশংসিত হয়; তার ক্যারিয়ারের সেরা চলচ্চিত্রের মধ্যে জায়গা করে নেয় এ ছবি। আম্মাজান মুক্তি পাওয়ার নয় বছর পর ২০০৮ সালে মারা যান মান্না।

‘আম্মাজান’ সিনেমায় মান্নার জায়গায় ফরীদি, রুবেলকে ভেবেছিলেন ডিপজল ‘আম্মাজান’ সিনেমায় মান্নার জায়গায় ফরীদি, রুবেলকে ভেবেছিলেন ডিপজল Reviewed by ChhondoMela on July 13, 2021 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.